আমার অভিজ্ঞতায় IELTS Listening এর প্রস্তুতি

গুগোল এ সার্চ দিলেই আপনি IELTS লিসেনিং এর অনেক টিপস পেয়ে যাবেন। এসব ভুরি ভুরি টিপস এ আমি এখন যাচ্ছি না। কিছু ছোট টিপস নিয়ে এখানে আলোচনা করব। ছোট হলেও, এগুলো আমার IELTS পরীক্ষার সময় বেশ কাজে লেগেছিল। একটি টিপস হল এরকম, যখন আপনি IELTS Listening part এর পরীক্ষা দেয়া শুরু করবেন, তখন প্রথমেই হাতে কিছু সময় পাবেন প্রশ্নপত্রের প্রশ্নগুলো দেখে নেয়ার জন্য। এজন্য আপনার হেডফোন বা স্পিকারে নির্দেশনা দেয়া হবে এবং বলে দেয়া হবে কত নাম্বার প্রশ্ন থেকে কত নাম্বার প্রশ্ন পর্যন্ত আপনি পড়ার সময় পাবেন। যেমন বলে দেয়া হবে, “আপনি এক নাম্বার সেকশনের 1 থেকে 6 নাম্বার পর্যন্ত প্রশ্নগুলো পড়ুন”। এই মুহূর্তে অনেকেই বেশি সময় পাওয়ায়, আরো বেশি প্রশ্ন পড়ে ফেলেন। এমনকি অনেকে এক নাম্বার সেকশনের সবগুলো প্রশ্ন পড়ে অর্থাৎ প্রায় 10 টি প্রশ্ন পড়ে, পরের দ্বিতীয় সেকশনের আরো কিছু প্রশ্ন পড়ে ফেলেন। এ কাজ করাটা মোটেও সঠিক নয়। কারন আমরা সাধারণত এতগুলো প্রশ্ন একসাথে মনে রাখতে পারি না। এ ছাড়াও বাড়তি প্রশ্ন পড়লে আমাদের মধ্যে একটি অতি আত্মবিশ্বাস তৈরি হয়। এ দু’য়ে মিলে পরীক্ষার সময় কনফিউশন তৈরি হয় এবং আমরা অনেক প্রশ্নের উত্তরই ভুল দিয়ে দেই। মনে রাখবেন, যারা প্রশ্নগুলো তৈরি করে থাকেন তারা এ ব্যাপারে বেশ অভিজ্ঞ এবং আপনার কতটুকু সময় লাগবে তা বুঝেই আপনাকে পর্যাপ্ত সময় দিয়েছেন।
দ্বিতীয় আরেকটি মহা গুরুত্বপূর্ণ টিপস আপনাদের সাথে শেয়ার করছি। যদি একটি প্রশ্ন আপনি না বোঝেন বা কনফিউজড থাকেন এবং পরবর্তী প্রশ্নের উত্তর খোঁজার সময় চলে আসে, তবে আগের প্রশ্নটি মাথা থেকে সাথে সাথে ঝেড়ে ফেলে দিবেন। আবার বলছি, একটি প্রশ্নের উত্তর দেয়ার সময় আগের কোনো প্রশ্নের ব্যাপারে একেবারেই চিন্তা করবেন না। এতে প্রতিটি প্রশ্নে আপনি আরো মনোযোগী হবেন। আমি নিজের অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, এভাবে পরীক্ষা দিলে আপনার স্কোর 0.5 থেকে 1 পর্যন্ত বেড়ে যাবে। আপনি নিজেই একবার এভাবে চেষ্টা করে দেখুন এবং ফলাফল কমেন্ট বক্সে লিখুন

Leave a Reply